বৃহস্পতিবার, রাত ১১:২২, ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রবিবার, ২১, আগস্ট, ২০২২ 124 বার পড়া হয়েছে

সোনালী ব্যাংকের বিদায়ী এমডি মোঃ আতাউর রহমান প্রধান তরুণ প্রজন্মের কাছে ব্যাংকিং জগতে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে..

মমিন খাঁন মুন,পাটগ্রামঃ
বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশ্বস্ত ব্যাংকিং জগতের আইডল উত্তরজনপদের মেধাবী ব্যক্তিত্ব জনাব মোঃ আতাউর রহমান প্রধান।তার হাত ধরেই বদলে গেছে দেশের শীর্ষ আর্থিক প্রতিষ্ঠান সোনালী ব্যাংক লিমিটেড। ২০১৯ সালের ২০ আগষ্ট অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের জারিকৃত প্রজ্ঞাপনে জনাব মোঃ আতাউর রহমান প্রধান ২০১৯ সালের ২৮ আগষ্ট এশিয়া মহাদেশের সর্ববৃহৎ কমার্শিয়াল প্রতিষ্ঠান সোনালী ব্যাংক লিমিটেডে যোগদান করেন।যোগদানের পর থেকেই তার সুশৃঙ্খল বলিষ্ঠ নেতৃত্ব বদলে দিয়েছে সোনালী ব্যাংকে অতীত চিত্র। তার নেতৃত্বই সোনালী ব্যাংকের সোনালী ইতিহাস। কিংবদন্তি মোঃ আতাউর রহমান প্রধান সময়ের চাহিদার নিরিখে ব্যাংকিং কার্যক্রম প্রযুক্তিনির্ভর ডিজিটালাইজেশন সিস্টেম নিশ্চত করার লক্ষে ৯০ ভাগ সফল হয়েছেন।চালু করেন সোনানী ব্যাংকের ই-সেবা কার্যক্রম। বিকাশের সাথে যুক্ত হয়েছে সোনালী ব্যাংকের আন্তঃলেনদেন। সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনা হয়েছে ব্যাংকিং ঋণ সেবা।বাংলাদেশর সুবর্ণ জয়ন্তী ও সোনালী ব্যাংকের ৫০ বছর পূর্তিতে মুজিব বর্ষকে স্বরণীয় করে রাখতে দুস্থ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বীর নিবাস নির্মান,ভাতাভুক্ত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ১০ লাখ টাকা ঋণ সুবিধা চালুকরণ, মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বিশেষ কর্মপরিকল্পনা সহ কৃষকদের মাঝে বিনা সুদে ঋণ বিতরণ, এজেন্ট ব্যাংকিং চালুকরণ, ডেবিট-ক্রেডিট কার্ড ও এটিএম বুথ বৃদ্ধি সহ সি.এস.আর এর আওতায় স্কুল,কলেজ ও মাদ্রাসা পড়ুয়া গরীব মেধাবী ও প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা বৃত্তি, স্কুল ব্যাগ,ড্রেস, বাইসাইকেল,কম্বল, কম্পিউটার, স্মার্ট ফোনসহ প্রযোজনীয় উপকরণ প্রদান, মাদকের ছোবল থেকে যুবকদের রক্ষায় বিভিন্ন সেক্টরে খেলাধুলা অব্যাহত রাখার পাশাপাশি ফুটবল ও ক্রিকেটে নারী খেলোয়াড়দের পৃষ্ঠপোষকতা করা ছাড়াও ধর্মীয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের লাইব্রেরিতে বই সহ আর্থিক সহযোগীতা প্রদান করেন তিনি।মফস্বল গণমাধ্যমকেও যুগোপযোগী ও প্রযুক্তি নির্ভরশীল করতেও তার সহযোগীতা ছিলো চোখে পড়ার মতো।৬ নং সেক্টরের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সংরক্ষণে তার অবদান ছিলো অতুলনীয়। করোনাভাইরাস চলাকালীন সময়ে ব্যাংকের বিশেষ কর্ম পরিকল্পনায় অসহায় মানুষের মাঝে ত্রাণ, মাক্স, প্রয়োজনীয় ঔষধ, হ্যান্ড স্যানিটাইজার সহ বিভিন্ন উপকরণ বিতরন কার্যক্রম ছিলো উল্লেখযোগ্য । ব্যাংকিং সেক্টরকে এগিয়ে নিতে তার উপস্থিত বুদ্ধিমত্তা ছিলো অনেকটাই জাদুকরী যার সুফল ভোগ করছে বর্তমান সময়ে ব্যাংকিং জগতের সাথে সম্পৃক্ত সকলেই। একনজরে- রংপুর অঞ্চলের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়নের উফারমারা গ্রামের এক সম্ভান্ত মুসলিম পরিবারে ০১/০১/১৯৬০ সালে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তার সংক্ষিপ্ত পরিচিতি নাম মোঃ আতাউর রহমান প্রধান,পিতাঃ মরহুম আফতাব উদ্দিন, মাতাঃমরহুমা আকলিমা বেগম। দুই সন্তানের জনক।
#এসএসসি বুড়িমারী হাশরউদ্দিন দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে এবং কারমাইকেল কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন।
#ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যবস্থাপনা বিষয়ে বি.কম অনার্স এম.কম সম্পন্ন করেন।
#১৯৮৪ সালে সোনালী ব্যাংকে ফিনান্সিয়াল এনালিস্ট হিসেবে যোগদান করেন।পর্যায়ক্রমে শাখা ব্যবস্থাপকের পাশাপাশি বিভিন্ন বিভাগের অঞ্চল প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
#জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে সোনালী ব্যাংক স্থানীয় কার্যালয়ের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
# সোনালী ব্যাংক ইউকে এর সিইও হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
#ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর হিসেবে সোনালী ব্যাংকে দায়িত্ব পালন করেন ।
#প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ।
#২০১৬ সালে রুপালী ব্যাংকে ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে যোগদান করে দায়িত্ব নেয়ার পর ব্যাংকের সামগ্রিক উন্নয়নে তার অবদান দেশের ব্যাংকিং জগতে ব্যাপক সাড়া ফেলে।
#উল্লেখ্য তিনি ব্যাংকিং জগতের সফলতার পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট নির্বাচনে সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে ২০১৮ সালে সম্মানিত সিনেট সদস্য নির্বাচিত হয়ে আরেক সাফল্য এনে দেশে-বিদেশে চমক সৃষ্টি করেন।
# ২০১৯ সালের আগষ্ট মাসে দেশের সর্ববৃহৎ আর্থিক প্রতিষ্ঠান সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে সরকার পুনরায় নিয়োগ প্রদান করেন।
এছাড়াও #পরিচালক, সোনালী এক্সচেঞ্জ কোং ইনকর্পোরেশন,নিউইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র,সোনালী ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড, সোনালী পোলারিস এফটি লিমিটেড, পদ্মা ব্যাংক লিমিটেড, প্রাইমারি ডিলার্স বাংলাদেশ লিমিটেড(পিডিবিএল), ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন লিমিটেড বাংলাদেশ (আইসিবি), সেন্ট্রাল ডিপোজিটরী বাংলাদেশ লিমিটেড (সিডিবিএল),ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভলপমেন্ট ফাইনান্স কোম্পানি লিমিটেড (আইআইএফডিএ)।
# সদস্যঃ পরিচালনা পর্ষদ, বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম)।
# রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যের অনুমোদনক্রমে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব গভর্নরস এর সদস্য হিসেবে মনোনীত হয়েছেন।
তিনি চলতি মাসের ২৭ আগষ্ট পর্যন্ত সোনালী ব্যাংকের প্রধান কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন শেষে অবসর গ্রহণ করবেন।
তার এই কর্ম জীবনের গৌরবময় সফলতা নতুন প্রজন্মের মাঝে কালজয়ী সাক্ষী হয়ে থাকবে।তার কৃতকর্ম সোনালী ব্যাংকের আজকের আলোকিত ইতিহাস। তবে আতাউর রহমান প্রধান মনে করেন মানুষের ভালবাসা ও সততার বহিঃপ্রকাশ জীবন বাস্তবতার আসল গল্প।তিনি ব্যাংকিং জগতে চলার পথে সকল সহকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা শিকার করে সকলের কর্মজীবনের সফলতা ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন।তিনি সোনালী ব্যাংকে মায়ের মতো করে ভালবাসার আহবান জানান সহকর্মীদের।
অপরদিকে তিনি তার কর্মজীবনের আলোকিত আরেক স্বনামধন্য সহযোদ্ধা বরিশালের কৃতি সন্তান সদ্য নিয়োগ প্রাপ্ত সোনালী ব্যাংকের সিইও এন্ড এমডি জনাব মোঃ আফজাল করিম এর উত্তরোত্তর সফলতা ও মঙ্গল কামনা করেন।


ট্যাগস :
নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
সবশেষ নিউজ